যাই হোক, দিন শেষে আপনি নিজেই নিজের এন্টারটেইনার !!!!!

১) শুনছস, ঐ ছেলেটার CGPA নাকি 3.98……সে নাকি সারাদিনই রুমে বইসা বইসা পড়ালেখা করে । ক্যামনেরে সম্ভব ভাই এইগুলা ? আসলে ছেলেগুলা মানুষনা … এলিয়েন…
২) কিরে তোর CGPA এতো কম ক্যা ? এত্ত কম সিজিপিএ নিয়া ইঞ্জিনিয়ার হইলেতো তুই তো চাকরিও পাবিনা !
৩) – ওয়াও, ভাইয়া আপনি এতো ভালো ছবি আঁকতে পারেন? ভাইয়া আপনি কি ফাইন আর্টসে পড়েন ?
– নাহ, পড়ছি প্রকৌশলে/ মেডিকেলে
৪) – আরে আপনিতো দেখি হুলুস্থুল কম্পিউটার প্রোগ্রামার । নিশ্চয় CSE এর স্টুডেন্ট? তো কোথায় পড়ছেন ?
– পড়ছি অমুক বিশ্ববিদ্যালয়ে । সাবজেক্ট সাইকোলজি
৫) – আপনার লেখালেখির হাত তো দেখি খুবই ভালো । চালিয়ে যান … আচ্ছা এসব করতে গিয়ে আপনার পড়ালেখার ক্ষতি হয়না ? কিভাবে ম্যানেজ করেন ?
– না সমস্যা হয়না । আমার রেজাল্টও মোটামোটি ভালো ।
৬) – কম্পিউটার তো দেখি আপনার হাতের খেলনা । কোন ডিপার্টমেন্টে আছেন আপনি ?
– মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে
৭) – কি। কি বললেন আপনি ? আপনার ইচ্ছা আছে নিউজ প্রেজেন্টেটর হওয়ার ? কিভাবে সম্ভব ? আপনিতো পড়ছেন প্রকৌশল নিয়ে……………

– তাতে কি ? প্রকৌশলীও হব আবার নিউজ প্রেজেন্টেটরও হব… দুটাই সমানে চালাব……………
৮)…………………
৯)………………………

১০)……………………………
আপনি কোথায় পড়ছেন, কি বিষয় নিয়ে পড়ছেন সেটা বড় কথা নয় । আপনি একটি সাবজেক্ট নিয়ে পড়াশুনা করছেন , তার মানে এই নয় যে আপনি ভিন্নধর্মী একটি বিষয় চর্চা করতে পারবেন না। আপনাকে তাই করতে হবে যা আপনার ভেতরে আছে । সেটা হতে পারে লেখালেখি, আঁকাআঁকি, প্রোগ্রামিং, ফটোগ্রাফি, ফিল্মমেকিং,……………ব্লাহ ব্লাহ ব্লাহ । হয়তোবা আপনার ইচ্ছে ছিল ফাইন আর্টসে পড়ার কিন্তু পরিবারের চাপে পড়ে পড়ছেন অন্য কোথাও । অসুবিধা নাই, ঐ বিষয়টিও পড়ুন আর আপনার আগ্রহ যে বিষয়ে সেটিরও চর্চা করতে থাকুন। (উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, বাংলাদেশের অনেক টপ লেভেলের কার্টুনিস্ট বুয়েটের) । এখন যদি প্রশ্ন করেন, এতো কিছুতে সময় দিতে গিয়ে পড়ালেখার কি হবে ? জবাব – সেটাও সমানেই চালাবেন এবং চেষ্টা থাকলে অনেককিছুই সম্ভব । হয়তোবা আউটস্ট্যান্ডিং একটা রেজাল্ট পাবেননা । কিন্তু আপনি যা চাইছেন তার জন্য ঐ এতো ভালো রেজাল্টের দরকার হয়না বস্‌। আপনি তো আর আপনার ডিপার্টমেন্টের ভবিষ্যৎ লেকচারার হতে চাইছেননা …………

যে ছেলেটার সিজিপিএ অনেক বেশি তার মনে হয়তো ইচ্ছা আছে গ্র্যাজুয়েশন শেষে সে তার ভার্সিটিতে লেকচারার হিসেবে জয়েন করবে। এখন আপনি যদি তার সাথে নিজেকে তুলনা করতে যান তাহলেই ধরাটা খাবেন বস্‌। আপনি যদি তার মতো করে সারারাত সারাদিন পড়ালেখা করতে যান তাহলে হয়তোবা দেখবেন আপনার রেজাল্ট যা তার চেয়েও খারাপ হয়ে বসে আছে । কারণ আপনি এতে অভ্যস্ত নন। হয়তোবা দেখা যাবে পড়ালেখায় আপনি তার ধারেকাছেও নাই কিন্তু চাকরিক্ষেত্রে আপনি তার চাইতেও দ্রুত উন্নতি করছেন অনেক খারাপ একটা রেজাল্ট থাকা সত্ত্বেও । কারণ আপনার ম্যানেজমেন্ট ক্ষমতা ঐ ট্যালেন্ট ছেলের চাইতেও অনেক বেশি……… কথা হচ্ছে সবার দ্বারা সবকিছু হয়নারে ভাই ।

পরিচিত এক ছোট ভাইয়ের মতে, দিনশেষে আপনি নিজেই নিজের এন্টারটেইনার… হাহুতাশ না করে আপনার ভেতরটা কি বলছে তাই শুনুন । নিজের আত্মবিশ্বাসটাই বড় কথা ।

Advertisements

4 thoughts on “যাই হোক, দিন শেষে আপনি নিজেই নিজের এন্টারটেইনার !!!!!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s