ফেসবুকারের রকমফের

 

 

কারো কাছে ফেবু মানেই, দিন-রাতভর চ্যাটিং
অন্য দিকে নাই মনোযোগ, অনলাইনেতেই ডেটিং
কেউ সারাদিন সারাটিরাত, পোস্ট দিয়ে যায় শত
আপডেট তার সবসময়ই লাইভ নিউজের মতো
কারো কাছে কষ্ট করে, লেখাটা আনফেয়ার
তাই ওনারা এটা-ওটা সদাই করেন শেয়ার
কেউবা আবার এটায় সেটায় সবাইরে দেন ট্যাগ
তাদের ট্যাগের চাপায় পড়ে পাবলিকে খায় র‍্যাগ
এক প্রজাতি সবকিছুতেই খুঁজে বেড়ান ইস্যু
দিন-রাতভর ইভেন্ট শেয়ার, বাদ পড়েনা কিছু
কারো কাছে ফেবু মানেই লাইক-বন্যায় ভাসা
বুকের ভেতর একটুখানি Celeb হওয়ার আশা
কেউ সারাদিন যুদ্ধ করেন, কেউবা আবার চাষা
অমুক ক্ল্যাশ আর তমুক ভিল এর ইনভাইটেশন আসা।
ডাক-ফেসে কেউ সেলফী তোলে, Retrica আর Candy তে
কেউবা আবার চেক-ইন মারে, KFC আর Handi তে
বার্সা-ভক্ত করেন দাবি , রিয়েল খেলে কুতকুত
এই ভালনা ওইটা ভাল, কেউবা করেন খুঁতখুঁত।
“অ্যাড মি” জাতি সদাই সজাগ,  অ্যাড মি পিলিচ ফ্রেন্ড
কারো কাছে ফেবুই হলো লাইফ-স্টাইল, ট্রেন্ড
কারো মাথায় অন-লাইনেতেই ব্যাবসা করার ধ্যান
হাজার টাকা ধান্দা করার, বিলি করেন জ্ঞান
আর্টিস্ট ভাইয়া ছবি এঁকে ফেবুয় আগে পোস্টায়
কেউবা খুঁজেন কি ভুল আছে, নেলা-নেমের পোজটায়।
এক প্রজাতি খবর ছড়ান, সাথে থাকে link
আরেক জাতি Scroll করেন, without blink !
নায়ক-কবি-ছড়াকারের  ভক্ত মানেই Fame
কারো কাছে সবকিছুই-ই Absurd আর Lame !
এরূপ লাখো ফেসবুকারের খবর নিতে চান?
ডাব্লিউ ডাব্লিউ ডাব্লিউ ডট ফেসবুকেতে যান।

তুই নেই তাই

তুই ছাড়া রুদ্দুরে
ক্লান্ত শহর,
মনমরা জোছনার
একলা প্রহর।

বসে থাকা চুপচাপ,
ক্যাফেটেরিয়ায়
বয়-বেয়ারার হাঁকে
সময় হারায়।

ফিরে আয়, হাঁটি আজ
এলোমেলো পথ
সিগারেট টানবোনা,
করছি শপথ।

সবখানে সবকিছু,
খালি খালি আজ
তুই ছাড়া একঘেয়ে
প্রিয় সব কাজ।

তুই ছাড়া বৃষ্টিতে,
আমি ভেজা কাক
খেলবোনা সাপ লুডু
আজ তবে থাক।

ফিরে আয় পাগলীটা
ধরেছি এ কান
প্লিজ, তুই ফিরে আয়
ছেড়ে অভিমান।

শেষ নাহওয়ার কাব্য (আতলামি)

সোমলতা, তোমার কাছে আমি ভালবাসা চেয়েছিলুম
তার বদলে তুমি আমায় দিয়েছিলে দুটি কড়কড়ে টোষ্ট বিস্কুট
সেই বিস্কুট খেতে গিয়ে হয়েছিল গগনবিদারী শব্দ ।
শব্দের প্রকটতায় ঘুম ভেঙে গিয়েছিল রাপুনজেলের
জানালা গলিয়ে চুল এলিয়ে আমায় বলেছিল সে- উঠে এসো
সে কাহিনীর ভিডিও ক্লিপ নেটে আপলোড করেছিল কেউ
youtube এ সে ভিডিও ক্লিপ পেয়েছিল লাখো লাখো হিট
তাতেই পথ আমাকে শুধিয়েছিল , পথিক তুমি কি আমাকে হারাইয়াছ
তার উত্তরে আমি কয়েছিলুম, আমি কাওকে হারাইনা
সবাই আমাকে হারিয়ে বাজায় বুকে সুখের বাজনা
পালিয়েছিলাম আমি, ভালবাসার সে আহবানে দেইনি সাড়া
হাঁটতে হাঁটতে পৌঁছেছিলাম গাঢ় হলুদ এক জগতে
যেখানে আকাশ পাখি গাছপালা সব হলুদে হলুদে হলুদায়িত
facebook স্ট্যাটাসে পাওয়া উপাত্তের উপর ভিত্তি করে
গিয়েছিলাম মহেঞ্জোদাড়ু আর হরপ্পার সেই ধুলোপড়া সভ্যতায়
সেথায় আমার গলে মাল্যদান করেছিল কোন এক রাজকন্যা
মাদকতায় পূর্ণ তার মদির আহ্বান উড়িয়ে দিয়েছিলাম বাতাসে
twitter এ সে দিনভর tweet করেছিল, আমায় ভালবাসে বলে
প্রত্যাখ্যান করে দেশান্তরে ছুটেছি আমি নিরন্তর আজন্মভর
নীলনদের স্বাভাবিক পানিতে সাবমেরিনে চড়ে গিয়েছি পিরামিডে
নেফেরতিতির মোহ আমি এখনো কাটিয়ে উঠতে পারিনি তাই
ক্লিওপেট্রাকে ফিরিয়ে দিয়ে হেলেনকে টেনে নিয়েছিলাম নিঃস্ব বুকে
ঘূর্ণিঝড় তোলেছিল হেলেন তার ওই আবেদনময় শরীর দিয়ে
এখনো বাতাসে তার শরীরের গন্ধ পাই আমি আরক্ত অহমিকায়
তার এক পায়ের নূপুরের ধ্বনি আখাংকা আর কামনায় মিশে গিয়েছিল
এখনো কি তুমি সোমলতা ভালবাস আমায় সাড়া পৃথিবীকে সাক্ষী রেখে
অবশেষে সোমলতা, আমি তোমার কাছে ভালবাসা চেয়েছিলাম, বিস্কুট চাইনি।

ঘটক মফিজ ভাই

এসেছেন আজ জায়গামতোই
আসেন দাদা দেখেন ভাই,
বায়োডাটা দেখে বলেন
কেমনতর পাত্রী চাই?

জেমি ভালো গান পারে
সুর তোলে সেতারে
মাঝে মাঝে ডাক পায়
টিভি আর বেতারে

মারিয়ার রূপ সেতো
বলে সবে আহা-রে
দেই উপমা কার সাথে?
খুঁজে আনেন তাহারে।

যূথী আছে নাচে গানে
ছবি ভালো আঁকে সে
অগণিত ট্রফি আছে
রাখা তার শোকেসে

অভিনয়ে নন্দিতা
মডেলিংয়ে আছে ঝোঁক
ফেসবুকে ফ্যানদের
নিয়মিত মারে পোক

নিশি করে R.J. গিরি
জাদু আছে ভয়েসে
এইবারে জেনে নিন
কে যে তার চয়েসে

শিউলি তো স্কুলে
ডাকসাইটে মাস্টার
মিষ্টি কথায়ও সে যে
ছুঁড়ে মারে ডাস্টার

সংসারের টাকাপয়সার
হিসাব রাখা দরকার?
ব্যাংকে চাকরি করে
পারমিতা সরকার

গৃহীকাজে পটীয়সী
এমনটি চানতো?
পলি, মলি, জলি আছে
কারে দেব কন তো?

এইবারে বলেন দাদা
বুকখানা ফুলিয়ে
কোন পাত্রী আপনার গলায়
দিতে হবে ঝুলিয়ে?

কোথায় কখন কবে বিয়ে?
কি ধরণের পাত্রী চাই?
আপনার জন্যই আছি বসে
আমি ঘটক মফিজ ভাই।

উৎসর্গঃ বড় ভাই ফয়সাল সোহান [ Faysal Sohan ] শ্রদ্ধাস্পদেষু (যার ছড়া পড়ে পড়ে আমিও ইদানীং লম্বা লম্বা ছড়া লিখে ফেলার দুঃসাহস দেখাচ্ছি )

স্বপ্ন এবং দুষ্টু কন্যা

রোজ বিকেলেই বাড়ির ছাদে
লাগিয়ে বেড়াস হাওয়া
দিবাস্বপ্নেই হয় আমার, তোর
আঙিনায় আসা যাওয়া ।

স্বপ্নে আসিস স্বপ্নেই যাস
স্বপ্নেই ঘরবাড়ি
স্বপ্নেই করি খুনসুটি রোজ
স্বপ্নেই দিই আড়ি ।

ইচ্ছে হলেই ছোঁব, সেতো নয়
ছেলের হাতের মোয়া
বাস্তবে নয়, স্বপ্নেই হয়
হাতদুটো তোর ছোঁয়া ।

দুষ্টু মেয়ে স্বপ্নেই তুই
খেলে যাস লুকোচুরি
রোজ রাত্তিরে স্বপ্নেই ভাঙ্গি
স্বপ্নের রাজপুরী । 

facebook রোমিও

ফেইসবুকে নয়া account খুলিয়া
পড়ালেখার পাঠ মাথায় তুলিয়া
রোমিও সেজে বইসা আছি একমুখে ।

দিনে দিনে friend list বাড়াইয়া
শত fake আইডির মাঝে হারাইয়া
জুলিয়েটরে খুজিয়া বেড়াই ফেইসবুকে ।

কত friend আসে কত friend যায়
করিতাছি কত chatting
সকালে জাপান বিকালে রাশিয়া
অন-লাইনে মারি dating

এক মুহূর্ত log-out করিলে
শান্ত থাকেনা মন
Exam এর খাতায় লিখে ফেলি আজ
হাই হ্যালো Emotion

কত জনারে যে like মারিলাম
মারিলাম কত poke
উত্তর আসেনা তবু বসে থাকি
ঠিক যেন চীনেজোঁক

Relationship status তবু
Single ই থেকে যায়
ফেইসবুকে হায় কেউ কি কখনো
জুলিয়েট খুঁজে পায় ?

Out of 10

রাগ করেছি তোর উপরে, কি করি তুই দ্যাখ !
রাগ ভাঙ্গানোয় অপটু তুই, দশে পাবি এক ।

যখন তখন বলিস আমায়, তুমি থেকে তুই
রাগ সামলানোয় পাবি যে তুই, মাত্র দশে দুই

সারাক্ষণ তোর ঘ্যানর ঘ্যানর, রাত্রিনিশিদিন
বিরক্তিকর তোর চাহনি, দশে পাবে তিন 

করিস অপরাধ, মিথ্যে বলেই, পেয়ে যাস তুই পার
মিথ্যেবাদী কন্যা যে তুই, সততায় পাবি চার

দিতে পারিস উঠোন ঝাড়ু, কুটতে পারিস মাছ
ঘর সামলানোয় দেব তোকে, দশে শুধুই পাঁচ

আতকে উঠিস ইঁদুর দেখে, আঁধারে পাস ভয়
সাহসটা তোর একটু কমই, দশে পাবি ছয়

রাঁধতে পারিস সর্ষেইলিশ, রাঁধতে পারিস ভাত
রান্নাবান্নায় তোকে আমি, দশে দেব সাত

এর ঘরে যাস ওর ঘরে যাস, দাপিয়ে বেড়াস মাঠ
পাড়া বেড়ানোয় নামকরা তুই, দশে পেয়ে যাবি আট

শপিং করার বাতিক যে তোর, লাগে ভীষণ ভয়
আচ্ছা যা তুই ওই বিষয়ে, পাবি দশে নয়

এত কিছুর পরেও তুই, রেখেছিস আমায় বশ
বর সামলানোয় পেয়েছিস তুই, দশে পুরাই দশ ।